সারাহ নর্থওয়ে, গেম প্রস্তুতকারক এবং যাযাবর

কাঁকড়ার টুপি পরা সারাহ এর ছবি
লবস্টার টুপির সাথে হাস্যোজ্জল ছবি
শুভেচ্ছা, আমি সারাহ নর্থওয়ে!

তুমি কি নিয়ে কাজ কর?

আমি ইন্ডি (indie) ভিডিও গেমস ডিজাইন এবং প্রোগ্রাম করি। সবচেয়ে পরিচিত যে গেমটি আমি তৈরি করেছি সেটা হল রিবিল্ড নামের একটি কৌশল সংক্রান্ত গেম, যেটা ব্রাউসার এবং মোবাইলফোন দিয়ে খেলা যায়। এই গেমসটি, জোম্বিদের-মাথায়-গুলি-করার যে গেমসগুলো রয়েছে সেই গেমসগুলোর মত নয়; বরং আপনাকে একটি শহরে বেঁচে থাকা কিছু মানুষকে নিয়ে গেমসটি খেলতে হবে আর একই সাথে এই মানুষদের বাঁচানোর জন্য কঠিন কিছু সিদ্ধান্ত নিতে হবে। অ্যাডব ফ্ল্যাশ (AS3 / AIR) ব্যবহার করে আমি এটা লিখেছিলাম এবং গেমসটি তৈরি করতে আমার প্রায় এক বছর লেগে গিয়েছিল। এই মুহূর্তে আমি রিবিল্ড ৩ নিয়ে কাজ করছি আর এটার জন্য আমি কিকস্টারটার এর কাছ থেকে অর্থ সংগ্রহ করেছি।
একটি ফোনে রিবিল্ড গেমটি খেলা হচ্ছে
একটি মোবাইলফোনে রিবিল্ড খেলা হচ্ছে
ইন্ডি গেম ডেভেলপার হওয়াটাকে আমি খুবই ভালবাসি কারণ আমার কাজের নিয়ন্ত্রক আমি নিজেই। সেই কারণে আমি আমার ইচ্ছেমত গেম তৈরি করতে পারি এবং আমি কাজগুলো আমার সুবিধামত সময়ে করতে পারি। গ্রাহকদের চাহিদা মত অনেক ধরনের কাজ আমাকে করতে হয়; শব্দ এবং ছবি নিয়ে কাজ থেকে শুরু করে গ্রাহক সেবা, সব ধরণের কাজই আমি করে থাকি। আসলে আমি কখনই বিরক্ত হইনা কিন্তু মাঝে মধ্যে আমি কিছু কাজ পাই যা অন্য কাজগুলোর থেকে অনেক বেশি মজার। প্রোগ্রামিং আমার সবচেয়ে প্রিয়।
একটি ফোনে রিবিল্ড গেমটি খেলা হচ্ছে
ফিলিপাইনে বসে আইপ্যাডে রিবিল্ড খেলা হচ্ছে

তুমি প্রোগ্রামিং কিভাবে শিখলেন?

ছোটবেলা থেকেই আমি কম্পিউটার খুবই ভালবাসি আর 80 এবং 90 দশকের গেমগুলো আমার খুবই পছন্দ কারণ হল আমার সেই সমস্ত গেমই পছন্দ যেগুলো তোমারা খেলতে পারবে। আমি গেম চালানোর জন্য শেল স্ক্রিপ্টিং শিখেছি, আমি যেন গেম ডাউনলোড করতে পারি সেজন্য বিবিএস (bulletin board system) ব্যবহার করা শিখেছি । তারপরে আমি এইচটিএমএল (HTML) শিখেছি যাতে আমি ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারি... কিন্তু কিসের উপরে আমি ওয়েবসাইট তৈরি করছি তা আমি আপনাদের অনুমানের উপর ছেড়ে দিচ্ছি। আমি প্রথম প্রোগ্রামিং করেছিলাম আমি যখন প্রথম বর্ষের একজন শিক্ষার্থী ছিলাম এবং সফটওয়্যারের ভিতরে থাকা প্রোগ্রামিং ভাষা ও লজিকের প্রেমে পড়ে যাই। আমার কাছে, প্রোগ্রামিং হল একটি গেমের মত।
আমি কম্পিউটার বিজ্ঞান অধ্যায়ন করেছি যেটা অনেক বেশি গণিত, তত্ত্ব এবং সার্কিট বোর্ডের সাথে সংশ্লিষ্ট ছিল যা আমার বেশি পছন্দ ছিল না। আমি আমার পছন্দের প্রকল্পে কাজ করার মাধ্যমেই সবচেয়ে বেশি শিখেছি, কোন শিক্ষকের কাছ থেকে কিংবা বই পড়ে নয়। আমার সবচেয়ে প্রিয় প্রকল্প হল একটি গেম যা আমি একটি ছেলের (আমার ভবিষ্যৎ স্বামী) সাথে তৈরি করেছিলাম, গেমটি পতঙ্গের বিবর্তন সম্পর্কিত।
একটি ফোনে রিবিল্ড গেমটি খেলা হচ্ছে
পানামাতে বসে প্রোগ্রামিং

তুমি অবসর সময়ে কি কর?

ইন্ডি গেম ডেভেলপার হওয়ার সবচেয়ে ভাল দিক হল ভ্রমণ করতে পারা। চার বছর আগে আমি আর আমার স্বামী কলিন, আমাদের সব কিছু বিক্রি করে দেই এবং তখন থেকেই সারা পৃথিবী ঘুরে বেড়াচ্ছি এবং গেম তৈরি করছি। আমরা জাপান, থাইল্যান্ড, তুর্কি, হন্ডুরাস দেশগুলোতে থেকেছি এবং বর্তমানে আমরা ব্রাজিলে আছি। আমরা আরও একটি গেম একসাথে তৈরি করেছি, গেমটির নাম হল Incredipede (ইনক্রেডিপি) এবং এটাও পতঙ্গ সম্পর্কিত... গেম।
স্কটল্যান্ডের নৌকার উপরে লরেন এবং কলিন
স্কটল্যান্ডে কলিনের সাথে একটি নৌকায়
আমার স্নোরকেল, হাইকিং, মনোরম স্থানে ঘোরা, বিভিন্ন সংস্কৃতির মানুষের সাথে পরিচিতি হওয়া, অদ্ভুত খাবার খাওয়া এবং বিভিন্ন প্রাণীদের সম্পর্কে জানার জন্য খুবই আগ্রহ। শহর আর বন্য পরিবেশ আমি পছন্দ করি এবং সারা পৃথিবীতে ছড়িয়ে থাকা ইন্ডি গেম ডেভেলপারদের সাথে পরিচিত হতে ভালোবাসি।
গ্রিসের পর্বতে লরেন হাইকিং করছেন
গ্রিসের পর্বতে হাইকিং

নতুন প্রোগ্রামারদের জন্য তোমার উপদেশ কী?

আজ যদি আমি শিখতে শুরু করি তাহলে আমি সেটাই শিখব যা দিয়ে আমি কিছু তৈরি করতে চাই (সম্ভবত এটি একটি গেমই হবে) এবং আমি ধাপে ধাপে শিখব। এখন শেখার জন্য বিনামূল্যে অনেক উৎস এবং টুলস আছে যা প্রোগ্রামিংকে সহজ করে তোলে। তোমার প্রেরণা এবং নিজের পছন্দ মত কিছু তৈরি করার সদিচ্ছা থাকা লাগবে।
কাঁকড়ার টুপি পড়া আমি একটু মজা করছিঃ
কাঁকড়াকে টুপির মত পরা অবস্থায় লরেন